স্বামীকে ছেড়ে লিভ-ইন পার্টনারের কাছে, তরুণীর মর্মান্তিক পরিণতি

স্বামীকে ছেড়ে অন্য এক যুবকের সঙ্গে লিভ-ইন করছিলেন তরুণী। কিন্তু যে ফ্ল্যাটে একসঙ্গে থাকছিলেন তারা, সেখান থেকেই উদ্ধার হল তরুণীর ঝুলন্ত দেহ। রহস্যজনক এই মৃত্যুর পরে তরুণীর ওই লিভ-ইন পার্টনারকে গ্রেফতার করেছে কলকাতার চারু মার্কেট থানার পুলিশ।

উর্মি দাস নামে ২২ বছর বয়সি ওই তরুণীর দেহ মঙ্গলবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানেই তরুণীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিত্‍সকরা। খবর পেয়ে হাসপাতালে যায় পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, গত ছ’মাস ধরে চারু চন্দ্র প্লেসের একটি ফ্ল্যাটে সুদীপ্ত দাস নামে এক যুবকের সঙ্গে ভাড়া থাকতেন উর্মি। তদন্তকারীরা জানতে পেরেছেন, এর আগে শুভ প্রামাণিক নামে এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে হয় উর্মির। কিন্তু স্বামীর সঙ্গে কোনও অশান্তির জেরেই সুদীপ্তর সঙ্গে লিভ-ইন করছিলেন উর্মি।

যদিও সুদীপ্তর সঙ্গেও ওই তরুণীর সমস্যা তৈরি হয় বলে অভিযোগ। সম্পর্কে অবনতির জেরেই উর্মি আত্মঘাতী হয়েছেন বলে তার পরিবারের দাবি। মৃতার পরিবারের অভিযোগ, উর্মিকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছেন সুদীপ্ত।

ওই যুবকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও দায়ের করেন উর্মির বাবা। অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। উর্মি আত্মহত্যা করেছেন কি না, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।