সেরা সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ ২৬১

rohimচাপের মধ্যে থেকেও কি দুর্দান্ত ব্যাটিংটাই না করলেন মুশফিকুর রহিম। তার অন্যবদ্য অপরাজিত সেঞ্চুরিতেই এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২৬১ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস। এদিন নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ সেঞ্চুরি তুলে নেন মুশফিক।

এর আগে এশিয়া কাপের ১৪তম আসরে উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলঙ্কা বিপক্ষে মাঠে নামে বাংলাদেশ। যেখানে লঙ্কানদের বিপক্ষে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে পাঁচটায় মাঠে নামে দু’দল।

শুরুটা বাজেভাবেই করে বাংলাদেশ। প্রথম ওভারের দুটি উইকেট হারায় দলটি। লাসিথ মালিঙ্গার পঞ্চম বলে স্লিপে থাকা কুশাল মেন্ডিসের ক্যাচে শূন্য রানে ফেরেন থাকা লিটন দাশ। পরের বলে উইকেটে আসা সাকিব আল হাসানকে একেবারে বোল্ড করে দেন এই অভিজ্ঞ লঙ্কান পেসার।

সুরাঙ্গা লাকমালের করা দলীয় দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে বাঁহাতের কবজিতে আঘাত পান তামিম ইকবাল। এমনিতেই ডানহাতের অনামিকায় তার পুরোনো চোট রয়েছে। পরে সে সময়ই রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছাড়েন এই ওপেনার।

দলীয় ২০তম ওভারে ক্যারিয়ারের চতুর্থ ওয়ানডে ম্যাচে প্রথম হাফসেঞ্চুরির দেখা পান মোহাম্মদ মিঠুন। ৫২ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় ফিফটি করেন তিনি। এর আগে ২০১৪ সালে ভারতের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ২৬ রান করেছিলেন।

শেষ পর্যন্ত ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান মালিঙ্গার তৃতীয় শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন। ২৬তম ওভারের তৃতীয় বলে তুলে মারতে গিয়ে উইকেটরক্ষক পেরেরার তালুবন্দি হন তিনি। ৬৮ বলে ৫টি চার ও ২টি ছক্কায় ৬৩ করেছিলেন মিঠুন। তৃতীয় উইকেট জুটিতে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ১৩১ রান করেছিলেন তিনি।

২৭তম ওভারের তৃতীয় বলে লঙ্কান স্পিনার আমিলা আপোনসোর শিকার হয়ে ফেরেন নতুন ব্যাটসম্যান মাহমুদউল্লাহ। ব্যক্তিগত এক ‍রানে তিনি ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার ক্যাচে পরিণত হন। পরের ওভারের শেষ বলে মালিঙ্গা নিজের চতুর্থ উইকেট উদযাপন করে মোসাদ্দেক হোসেনকে দিয়ে। এক রান করা মোসাদ্দেক উইকেটের পেছনে থাকা পেররাকে ক্যাচ দেন।

মুশফিকের সঙ্গে ভালো ব্যাটিং করতে থাকা মেহেদি হাসান মিরাজ ৩৪তম ওভারে ফিরে যান। ১৫ রান করা এই অলরাউন্ডার সুরাঙ্গা লাকমালের কট এন্ড বোল্ডের শিকার হন।