সুখবর নিবন্ধন সনদধারীদের জন্য

teacher দীর্ঘদিন বেসিরকারি শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ থাকার পর এ মাসের মধ্যেই এনটিআরসিএ নিয়োগ পক্রিয়া শুরু করবে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাই এ মাসের যে কোন সময় গণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হওয়ার কথা আর যদি কোন কারণে এ মাসে গণ বিজ্ঞপ্তি না হয় তাহলে আগামি মাসের প্রথম সপ্তাহে গণ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবেই। আর এ বছরই নিয়োগ কার্যক্রুম সম্পর্ণ করা হবে।

তাই এ সংবাদ নিবন্ধন সনদধারীর জন্য মহাখুশির সংবাদঃ
১=নিয়োগ প্রক্রিয়া ২০ দিনের মধ্যেই শুরু হবে।
২=জাতীয় মেধাক্রম অনুযায়ী নিয়োগ হবে।
৩=যারা চাকরি পেয়েছে,মারা গেছে,চাকরি করতে ইচ্ছুক নয় অথচ নিবন্ধন সনদ আছে
তাদের মেরিট লিস্ট থেকে বাদ দেওয়া হবে।
৪=সনদ প্রাপ্ত সকলের চাকরি হবে না,কেবল লিখিত৫০ প্লাস নাম্বারধারির চাকরি হবে,,৪০-৪৯ নাম্বার হওয়া সত্ত্বেও যারা রিট করেছে তাদের বিবেচনায় রাখা হবে।
৫=তবে বাংলাদেশের কোথাও লিখিত ৫০ + নাম্বারধারী নাপাওয়া সাপেক্ষে তাদের অথাৎ ৪০-৪৯ নাম্বারধারীর নিয়োগ হবে। এ নিয়ম কেবল ১৪ও ১৫ তম নিয়োগের আগে বলবৎ থাকবে।
৬=চাকরি প্রত্যাশি হলে এন টি আর সি এ এর নির্দিষ্ট ওয়েব সাইটে প্রাথমিক আবেদন করতে হবে।
৭=প্রাথমিক আবেদন করেই চুড়ান্ত নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে। (কে চাকরি প্রত্যাশি আর কে নয় তা পৃথক করায় আলোচ্য আবেদনের উদ্দেশ্যে)।
৮=নির্দিষ্ট পদ বাংলাদেশের কোথাও না পাওয়া গেলে তাকে ২ য় মেরিট লিস্ট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
৯=এ নিয়োগ প্রক্রিয়া কেবল ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে,এ সময়ের মধ্যে ৩ বার মেরিট লিস্ট হবে।
১০=একই নাম্বার ধারী একাধিক ব্যাক্তি থাকা সাপেক্ষে একাডেমিক সনদ বিবেচনায় আনা হবে,,তাতেও সমান হলে নির্দিষ্ট শর্তমেনে নিয়োগ দেয়া হবে।
১১=যারা লিখিত৫০ প্লাস নাম্বার প্রাপ্ত অথচ ৩ মেরিটের কোনো মেরিটেই নাম না আসা সাপেক্ষে তারা পরের বছরের মেরিটে ১৪ ও ১৫ তমদের সাথে আবেদন করবে এবং তাদের নিয়োগ ১৪ও১৫
তমদের চেয়ে অগ্রাধিকার পাবে।
১২=কিন্তু ১৪ তম থেকে শুধু মাত্র সর্বোচ্চ নাম্বারধারীর নিয়োগ হবে।।
১৩=কেবল আন্ডার ৩৫ তমদের চাকরির জন্য সুপারিশ প্রাপ্ত হবে।