সরকারের সাথে বৈঠক শেষে যা বললেন আন্দোলনকারীরা

kota (2)চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলন আগামী ৭ মে পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।এই সময়ের মধ্যে চলমান কোটা পদ্ধতির বিষয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের।

আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত কোটা সংস্কার আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছে। আজ সোমবার সচিবালয়ে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন।

বৈঠক শেষে পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন এ ঘোষণা দেন। সোমবার যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের কনফারেন্স রুমে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ বৈঠক শুরু হয়। শেষ হয় ৬টা ১৮ মিনিটে।

এর আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে ১১ সদস্যের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে সচিবালয়ে সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে বৈঠকে বসেন আন্দোলনকারীদের ২০ সদস্যের প্রতিনিধিদল।

বৈঠক শেষে হাসান আল মামুন জানান, মে মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে কোটা সংস্কার করা হবে-এমন আশ্বাসে আপাতত আন্দোলন স্থগিত করছেন তাঁরা। একইসঙ্গে গ্রেপ্তার করা শিক্ষার্থীদের মুক্তি দেওয়া হবে এবং সরকারের পক্ষ থেকে আহতদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে বলেও তাঁদের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে বলে জানান আন্দোলনকারীদের এই আহ্বায়ক।

বৈঠকে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দলে ছিলেন – দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ ও জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এ কে এম এনামুল হক শামীম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য এস এম কামাল হোসেন এবং উপদপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। এ ছাড়া ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়াসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

আন্দোলনকারীদের দলে ছিলেন হাসান আল মামুন, নিলয়, ফারুক, সোহেল, সন্ধান, উজ্জ্বল, তারেক, লিটন, ইমরান, নুর, ইলিয়াস, সুমন, সাথী, সাইদ, দীনা, আরজিনা, লুবণা, কানিজ, সুমন ও তিথি।

এর আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে বর্তমান কোটাব্যবস্থা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

প্রসঙ্গত, কোটা সংস্কারের দাবিতে গতকাল রবিবার দুপুর আড়াইটা থেকে শাহবাগ মোড়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন হাজার হাজার শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থী। একই সঙ্গে সারাদেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালিত হয়।

রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অবস্থানের কারণে শাহবাগসহ আশপাশের সড়ক দিয়ে সব ধরনের যান চলাচাল বন্ধ হয়ে যায়। দুর্ভোগে পড়েন রাজধানীবাসী। রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশ টিয়ারসেল, জলকামান ও লাঠিপেটা করে শিক্ষার্থীদের অবস্থান থেকে সরিয়ে দেয়। শুরু হয় সংঘর্ষ। থেকে থেকে সংঘর্ষে প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী আহত হন। আটক করা হয় অসংখ্য শিক্ষার্থীকে। মধ্যরাতে হামলা চালানো হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের বাসভবনে। ভাঙচুর করে সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।