সন্তানকে বদদোয়া দিয়ে অবশেষে মা পাগল হয়ে গেল

mentalমায়ের দোয়া, মায়ের বদদোয়া
আর মা সন্তানের জন্য মেয়েও দেখা আরম্ভ করল আর নিজেদের আত্মীযের মধ্যে খুব সুন্দর একটি মেয়ে ঠিক করল, আর বিয়ের জন্য খুব তোড়জোড় শুরু হল, আলিশান আয়োজন শুরু হয়ে গেল, ছেলে ভাল ইনকাম করে তাই টাকা পয়সারও কমতি ছিল না, যখন সবকিছু তৈরী হয়ে গেল আর বিয়ের আর মাত্র ৩ দিন বাকি ছিল, আল্লাহর কি শান সে ছেলেটি নিজের ঘরেই চলাফেরা করছিল বিয়ের প্রস্তুতি স্বরুপ ঘরের ফ্লোর ধৈৗত করেছিল যার ফলে ফ্লোর ভিজা ছিল।

আল্লাহ তায়ালা ফল পাকতে দিলেন যখন ফল পেকে তৈরী হল তখন আল্লাহ তায়ালা ফল কাটলেন, মা এখন তোমার বুঝে আসবে তুমি আমার কোন নেয়ামতের না শোকরী করেছ, এমন সন্তানের মৃত্যুতে মা এমন মানসিক ভাবে আঘাত পেল যে শেষ পযন্ত মা মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলল।

তাই মায়েরা সাবধান সন্তানদের ব্যপারে বদদোয়া করার ব্যপারে খুবই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে, মায়েরা ছোট ছোট কারনে সন্তানদের বদদোয়া দিয়ে ফেলে আর বড় হয়ে যখন সে সন্তান বিপদগ্রস্থ হয়, তখন সে সন্তানের জন্য বসে বসে কান্না করে, মায়েদের বদদোয়ার কারনে শুধু মৃত্যু বরন করবে তা নয়, হয়ত সে সন্তান গোমরাহ হয়ে যায়, সন্ত্রাসী হয়ে যায়, শরাবী হয়ে যায়, খুনী হয়ে যায়, বিপদগ্রস্থ হয়ে যায়, বেকার গলি গলি ঘুরতে থাকে, চাকরী পায় না, নেশাগ্রস্থ হয়ে যায়, এভাবে নানান সমস্যায় জর্জরিত থাকে, মা বাবার খেদমত করে না, গুনাহের কাজে লিপ্ত থাকে, তখন মা- বাবা আফসুস করে আর সন্তানের জন্য দোয়া করে, কিন্তু উচিত ছিল কখনো সন্তানকে বদদোয়া না দেয়া, বদ দোয়া দিয়ে দিয়ে সন্তানদের বরবাদ করে পরে যখন বরবাদ হয়ে যায় তখন মা-বাবা আবার সন্তানের জন্য কান্না করে।