মুসলমান হিসেবে যে তথ্যগুলো অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে

islamআমরা প্রত্যেকেই নিজেদের মুসলমান হিসেবে দাবি করি। কিন্তু মুসলমান হিসেবে দাবি করার আগে মুসলিমদের যে কাজগুলো করতে হয় সেগুলো অনেকেই করি না। নামাজ, রোজা ইত্যাদি তো করিই না বরং আমাদের অহংকারের ধর্ম ইসলামের গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাসগুলোও জানিনা। তাই নিচে কিছু ইসলামের ইতিহাস তুলে ধরছি, যেগুলো আমাদের সকলকেই জেনে রাখা দরকার।

৫৭০ খ্রীষ্টাব্দ : মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) এর জন্ম। বিশুদ্ধ মত অনুযায়ী রবিউল আউয়ালের ১২ তারিখ সোমবার।
৫৭২ খ্রীষ্টাব্দ : দুবছর পর তিনি দুগ্ধ পান বন্ধ করেন। ধাত্রী মা হালিমার ঘরে অবস্থান।
৫৭৩-৭৫ খ্রীষ্টাব্দ : ৩/৪/৫ বছর বয়সে তাঁর বক্ষ বিদারণ হয়।
৫৭৫-৭৬ খ্রীষ্টাব্দ : ৫/৬ বছর বয়সকালে জননী আমিনার কোলে প্রত্যাবর্তন।

৫৭৬ খ্রীষ্টাব্দ : ৬ বছর বয়সে মায়ের সাথে নানার বাড়ি গমন এবং ফেরার পথে আবওয়া নামক স্থানে মা আমিনার মৃত্যু। মা হারা শিশু বালক।

৫৭৮ খ্রীষ্টাব্দ : ৮ বছর বয়সে দাদা আব্দুল মোত্তালিবের ইনতিকাল এবং চাচা আবু তালিবের উপর তাঁর প্রতিপালনের ভার ন্যাস্ত।
৫৮২ খ্রীষ্টাব্দ : ১২ বছর বয়সে আবু তালিবের সঙ্গে সিরিয়া গমন এবং খ্রিস্টান পন্ডিত ও পাদ্রী বুহাইরা কর্তৃক প্রতিশ্রুত শেষ নবী হিসেবে চিহ্নত।

৫৮৪-৮৫ খ্রীষ্টাব্দ : ১৫ বছর বয়সে হাবুল ফুজ্জার যুদ্ধে অংশ গ্রহণ।
৫৮৯-৯০ খ্রীষ্টাব্দ : খাদিজা এর বাণিজ্য প্রতিনিধিরূপে সিরিয়া ই ইয়ামান গমন।
৫৯৫ খ্রীষ্টাব্দ : ২৫ বছর বয়সে বিবি খাদিজার সাথে বিবাহ।
৬০৫ খ্রীষ্টাব্দ : হেরা গুহায় তাঁর ধ্যানমগ্ন জীবনের সূচনা হয়।
৬১০ খ্রীষ্টাব্দ : ৪০ বছর বয়সে নবুওয়াত লাভ। জিব্রাইল (আ.) কর্তৃক তাঁকে ওযু ও পবিত্রতা পদ্ধতি প্রদান। কোরআন নাযিলের সূচনা।

৬১০-১৩ খ্রীষ্টাব্দ : নবুওয়াতের প্রথম ৩ বছর গোপনে ইসলাম প্রচার। সর্বপ্রথম খাদীজা, যায়িদ, আলী ও আবু বকর এর ইসলাম গ্রহণ। এর পর উসমান, যুবায়েরসহ ৪০ জনের ইসলাম গ্রহণ।
৬১৪ খ্রীষ্টাব্দ : আল্লাহর পক্ষ থেকে প্রকাশ্যে ইসলাম প্রচারের আদেশ দান। নবী (স.) এর প্রতি আবু লাহাবের পাথর নিক্ষেপ ও সূরা লাহাব অবতীর্ণ।

৬১৫ খ্রীষ্টাব্দ : নবুওয়াতের ৫ম বর্ষে উসমান এর নেতৃত্বে ১৬ সাহাবীর দলের আবিসিনিয়া হিজরত। উমর ও হামযা এর ইসলাম গ্রহণ।
৬১৬-৬১৯ খ্রীষ্টাব্দ : সমামচ্যুত। ৩ বছর আবদ্ধ জীবন যাপন।
৬১৯ খ্রীষ্টাব্দ : বিবি খাদিজা ও চাচা আবু তালিবের মৃত্যু।
৬২২ খ্রীষ্টাব্দ : মদীনায় হিজরতের জন্য সাহাবীগণের প্রতি নির্দেশ জারী। রাসূল (স.) ও আবু বকর এর মক্কা ত্যাগ এবং গারে সাওরে আশ্রয়।

১ম হিজরী/৬২২ খ্রীষ্টাব্দ : ইয়াসরীবের পরিবর্তে মদীনা নামকরণ, মসজিদে নববী নির্মাণ, আযান, ওযু নামাযের নিয়ম ও জুম্মা প্রচলিত হয়।
২য় হিজরী : যাকাত, রোজা, কিবলা, ঈদ-উল-ফিতর, ঈদ-উল- আযহা, হজ্জ্ব পালনের প্রত্যাদেশ লাভ ও বদরের যুদ্ধ।
৩য় হিজরী : মদীনায় ইসলামী প্রজাতন্ত্র স্থাপন, পৃথিবীর ইতিহাসে সর্বপ্রথম লিখিত সংবিধান মদীনা সনদ প্রণয়ন এবং ওহুদের যুদ্ধ।

৫-৬ হিজরী : পর্দা প্রবর্তিত, খন্দকের যুদ্ধ ও হুদায়বিয়ার সন্ধি।
৭ম হিজরী : খাইবার জয়, মুতার যুদ্ধ, মদ নিষিদ্ধ ঘোষণা।
৮ম হিজরী : মক্কা বিজয়, হুনাইনের যুদ্ধে ও তায়েফে ইসলামের বিজয় হয়।
৯ম হিজরী : ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক হজ্জের বিধান প্রবর্তন।
১০ম হিজরী : ১ লাখেরও বেশি সাহাবীসহ বিশ্বনবী (স.) বিদায় হজ্জ্বে আরাফাতের ময়দানে মানব জাতির জন্য দিক নির্দেশনামূলক ঐতিহাসিক ভাষণ দান।

১১ হিজরী/৬৩২ খ্রীষ্টাব্দ : নবী (স.) এর মাথা ব্যাথা ও জ্বরের সূচনা। ৬৩ বছর বয়সে ১২ ই রবিউল আওয়াল সোমবার বিশ্বনবী (স.) এর ওফাত হয়। বুধবার ১৪ রবিউল আওয়াল ভোর রাতে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়।
নিজে জানি অন্যকে শেয়ার এর মাধ্যমে জানিয়ে দেই ।