মিলাকে গুলি করে হত্যার হুমকি

mila (3)

সম্প্রতি শ্বশুরবাড়ির ‘নির্যাতন’ ও গুলি করে হত্যার হুমকির অভিযোগ করেছিলেন কণ্ঠশিল্পী মিলা।

সবমিলিয়ে মিলার ফেসবুক পোস্ট ছিল ‘বেদনাময়।’ এসব নিয়েই আজ সাংবাদিকদের সাথে কথা বলবেন মঞ্চ মাতানো এই শিল্পী।

আজ বিকেলে বেইলি রোডের ক্যাফে থার্টি থ্রিতে আয়োজন করা হয়েছে সংবাদ সম্মেলন।

বুধবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করে কালের কণ্ঠকে মিলা ইসলাম বলেন, শেষ দু’বছর আসলেই আমার সাথে কী হয়েছে।

milla

কীসের ভেতর দিয়ে যাচ্ছি আমি- আমার মানসিক অবস্থা কোন পর্যায়ে চলে যাচ্ছে আমি সব খুলে বলবো।

তিনি বলেন, আমার কোনো শক্তি নেই। কিন্তু আমার সাথে অন্যায় করে, কেউ শক্তির অপব্যবহার করে পার পেয়ে যাবে।

শক্তির অপব্যবহার করে আমাকে আঘাত করে যাবে আমি মেয়ে বলে চুপ করে থাকবো? আপনারা (সাংবাদিকেরা) আসুন। আমি সবিস্তারে বলবো।

mila (4)

মিলা গত ১৮ এপ্রিল নিজের ফেসবুকে লেখেন, ‘আমি এখন বলতেও পারি নাই শেষের দিন আমার শাশুড়ি আমার স্বামীর কথায় আমাকে কিভাবে বাথরুম থেকে দরজা ভেঙে বের করে।

বিনা কাপড় পরিহিত অবস্থায় জঘন্য ভাবে টেনে আমার দেবর তার স্ত্রী এবং তার স্ত্রীর বাবা মায়ের সামনে এক ঘণ্টা গালিগালাজ করতে থাকে।

আমার বাবা ভাইবারে ভিডিও কলের মাধ্যমে পুরাটা ঘটনা দেখে।

milaa

এক পর্যায়ে আমি হাত জোড় করে ভিক্ষা চাই এই বলে ‘আম্মু আমাকে মেয়ে বলে নিয়ে আসছিলেন ..আমার গায়ে কাপড় নাই।

দয়া করে আমাকে ঘরের দরজা বন্ধ করে যা বলার বলেন..কিন্তু এই অপমান করেন না’ …ভিডিও টা এখনও আমার কাছে… দেশের শিল্পী আমি?’

মিলার এমন অভিযোগে ভক্তরা বাকরুদ্ধ হয়ে যায়। গণমাধ্যমগুলো ফলাও করে সংবাদ পরিবেশন করে।

মিলা আরও অভিযোগ করেন, সেলফ ডিফেন্সের নামে তাঁকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে।

mila

কত কত জীবিত ‘নুসরাত’ আইন এর কাছে দাঁড়ান দিনের পর দিন। কিন্তু না মেরে ফেলা পর্যন্ত তাদের জন্য কোনও আওয়াজ উঠবে না।

আইন দেশের সুন্দর। দুই বছর হয়ে যাচ্ছে। কোর্ট এ উল্টা জঘন্য ভাবে চিৎকার দিয়ে অপবাদ দেয়া হয় আমাকে। বিচার তো দূর।

nusrat

দাখিল করা ‘খ’ ধারার চার্জশিট আমাকে না বুঝতে দিয়ে ‘গ’ ধারায় মামলা চার্জ গঠন করা হয়।

আমার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। আমার জানা ছিল, নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় কোনও রকমের হস্তক্ষেপে নেত্রীর কঠোর নিষেধ রয়েছে।

তিন বার আদালতের আদেশ টানা অমান্য করলে জামিন বাতিল হবার কথা। পাঁচ বার আমাকে কোর্ট নানান বুঝ দিয়ে পার্মানেন্ট জামিন দেয়।