এ দুঃখের নেই কোন সীমানা মালয়েশিয়ায় রাস্তায় শুয়ে মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা

probasi

মালয়েশিয়ায় রাস্তায় শুয়ে মৃত্যুর জন্য অপেক্ষায় আছে সে। এ কষ্টের জীবন থেকে রেহাই পেতে চায়।

ভাগ্য ফেরানো হলো না হতভাগ্য গিয়াস উদ্দিনের। জীবিকার তাগিদে দেড় বছর আগে মালয়েশিয়ায় বেশ সুখেই যাচ্ছিল তার দিন।

কিন্তু মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ভেঙে গেছে দুটি হাত ও মেরুদন্ড। না পারছে উঠতে না পারছে হাঁটতে।

ক্ষুধার যন্ত্রনায় কুয়ালালামপুরের তিতিওংসা জালান দাতু হাজি ইউসুফ ইতি দোকানের বারান্দায় শুয়ে আছে।

অনেকেই সহমর্মিতার সাথে তাকে খাদ্য কিনে দিয়েছে এবং শুনতে চাচ্ছে বাংলাদেশের বাড়ি কোথায়।

এক পথচারী জানান, গত মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় তার দুটি হাত ও মেরুদণ্ড ভেঙে গেছে।

জানিনা কোথায় যাব এখন। টাঙ্গাইল জেলার হতদরিদ্র এই রেমিটেন্স যোদ্ধা সংসারের সুখের আশায় আসলেও আজ দিন কাটছে রাস্তায়।

এমনটি দেখে অনেকেই চোখের পানি ছেড়ে দেন।

পরিবারের সামর্থ্য নেই টাকা দিয়ে দেশে আনার। চিকিৎসার অভাবে পরে আছে মাটিতে দেখার মত কেউ নই গরীব তাই।

এ দুঃখের সীমা নেই মালয়েশিয়ায় রাস্তায় শুয়ে মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা।

অদক্ষ শ্রমিকরা আসার পর পরিবার এবং নিজেই আরো বেকাদায় পড়ছে।

সরকার উদ্যোগ নিয়ে অভিবাসন ব্যয়টা কমিয়ে আনতে পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন।

যে সকল শ্রমিক ভাইয়ের উচ্চমূল্য দিয়ে ভিসা নিয়ে আসার আগে চিন্তা করা উচিত আসার পরে নয়।