মানুষের জন্য মানুষ !

motamotমানুষ সৃষ্টির সেরা জীব। আল্লাহ্‌ আমাদের সেরা করেই সৃষ্টি করেছেন । আমাদের বিবেক-বুদ্ধি দিয়েছেন ভাল–মন্দের পার্থক্য করার জন্য।আমরা পার্থক্যটা ঠিকই বুঝি, কিন্তু মন্দটাকে ছেঁটে ফেলে ভালটাকে গ্রহণ করি না, বরং তার উল্টোটা করি।

কিছু কিছু মানুষকে পশু বললেও পশুদের অপমান করা হয়। রাস্তায় নবজাতক সন্তানকে ফেলে যায় জন্মদাত্রী মা। আবার সেই শিশুকে বাচায় কুকুর । তাহলে আমরা কি পশুর চেয়েও অধম ?

প্রতিদিন মানুষকে বাঁচানোর জন্য যত না অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে, তার চেয়ে বেশি অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে মানুষকে মারার কাজে। একজন মানুষকে হত্যা করাই এখন আরেক মানুষের প্রধান কৌশল হয়ে দাঁড়িয়েছে। মানুষের ভেতরে জেগে থাকা মানুষটি আর জেগে নেই। কুম্ভকর্ণ তাও বছরে দু’বার জেগে উঠত। কিন্তু আমাদের মানবিক মূল্যবোধ হয়তো চিরদিনের জন্য ঘুমিয়ে পড়েছে।

মানুষ কতটা নির্লজ্জ আর খারাপ হতে পারে তার বড় উদাহরণ সাফাত, সাদমান, নাঈমরা। জন্মদিনের পার্টিতে ডেকেবান্ধবীকে ধর্ষণ করে। যেদিন সে তার মায়ের জরায়ু থেকে বের হয়ে এসেছে, সেই দিনই সে রক্তাক্ত করে দিল অন্য কারো জরায়ু। এ কোন মানসিকতা! এটা কোন সভ্যতা? আমরা মানুষ হব কবে?

প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললেই আমরা দেখি মানবিক লাঞ্ছনার বিষাক্ত তথ্য। যা প্রচন্ড ধাক্কা দেয় মানবিক বোধকে! যখন একটি শিশুকে চোরের অপবাদে দড়ি দিয়ে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা করা হয়, চিকিৎসাধীন অবস্থায় একটি নবজাতক শিশুকে ছাদ থেকে ফেলে দেওয়া হয়, কলঙ্কিত ছাত্রনেতাদের রাজনৈতিক সংঘর্ষে পৃথিবীর আলো দেখার আগেই মায়ের পেটের গর্ভের সন্তানকে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর স্বাদ নিতে হয়; যেখানে পাঁচ বছরের শিশু থেকে শুরু করে পঞ্চাশ বছরের মহিলাকেও ধর্ষণের শিকার হতে হয়- সেখানে কোথায় আমাদের সভ্যতা? কোথায় আমাদের মানবিক মূল্যবোধ?

মানুষ সামান্য ১ টাকার জন্য যখন হতদরিদ্র গাড়ীর কালেক্টরের সাথে উদ্ধত্ব আচরণ করতে দ্বিধাবোধ করি না, কেন আমাদের মানবতা বোধ দিন দিন ভোঁতা হয়ে যাচ্ছে? কেন আমাদের আচরণগুলো দিন দিন উগ্র হয়ে উঠছে? কেনইবা আমরা আমাদের শ্রেষ্ঠত্ব ভুলে গিয়ে পশুদের মতো বিচরণ করছি? আসুন, আমরা সবাই মানুষ হই। আসুন, আমরা সবাই আমাদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করি।

লেখক ঃ মোঃ আতিকুর রহমান , সাংবাদিক ও সমাজকর্মী