বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপিই যথেষ্ট

kader 1রাতের আঁধারে গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে বিএনপি গণতান্ত্রিক চেতনা প্রশ্নবিদ্ধ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘সরকার নয়, বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপিই যথেষ্ট।’

সোমবার রাজধানীতে বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে ধানমণ্ডি থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত দলের নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দলের গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করতে হলে ২৫০০ কাউন্সিলের সম্মতির প্রয়োজন হয়। কিন্তু বিএনপি রাতের আঁধারে কলমের এক খোঁচায় গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে ফেলল! এ তাদের গণতন্ত্র। যে দলে নিজেদের মধ্যেই গণতন্ত্রের চর্চা নেই; সেই দল কিভাবে দেশের গণতন্ত্রের কথা বলে।’

বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৭ ধারায় দলের সদস্য হওয়ার ক্ষেত্রে অযোগ্যতার বিষয়ে বলা ছিল, কেউ দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হলে তিনি দলের সদস্য থাকতে পারবেন না। ওই ধারার (ক)তে আছে, ১৯৭২ সালের রাষ্ট্রপতি আদেশ নং ৯-এর বলে দণ্ডিত ব্যক্তি, (খ) দেউলিয়া, (গ) উন্মাদ বলে প্রমাণিত ব্যক্তি, (ঘ) সমাজে দুর্নীতিপরায়ণ বা কুখ্যাত বলে পরিচিত ব্যক্তি দলের সদস্য হতে পারবে না। ওবায়দুল বলেন, ‘বিএনপির গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা বাতিল করার ফলে এখন কি দাঁড়াল? কোনো মামলায় দণ্ডিত ব্যক্তি, উন্মাদ, দেউলিয়া, দুর্নীতিবাজরাও বিএনপি করতে পারবেন!’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলায় সাজা হতে পারে এ আশঙ্কায় তারা দলের গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন এনেছে।’

‘সরকার বিএনপি ভাঙার চেষ্টা করছে’ বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগের জবাবে আওয়ামী লীগর সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপি যে নেতিবাচক রাজনীতি শুরু করেছে, তাতে করে ওই দলটি ভাঙার জন্য আওয়ামী লীগ কিংবা সরকারের প্রয়োজন নেই। বিএনপি ভাঙার জন্য বিএনপিই যথেষ্ট।’

তিনি বলেন, ‘সরকারবিরোধী আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি এখন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলনের হুমকি দিচ্ছে। তারা বলছে, সরকার আদালতকে খালেদা জিয়ার সাজার ব্যাপারে চাপ দিচ্ছে! আমি বলতে চাই, আদালত যখন ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় দিলেন তখন ফখরুল সাহেবদের কাছে আদালত স্বাধীন ছিল। এখন যখন আদালত তাদের নেত্রীর দুর্নীতির বিরুদ্ধে মামলার বিচার করছেন তখন সরকার আদালতকে চাপ দিচ্ছে!’

সরকার এবং বিএনপি খালেদা জিয়ার মামলা নিয়ে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য দিচ্ছে- সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের এমন মন্তব্যের জবাবে কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা আওয়ামী লীগ সরকার করেনি। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দুদক এ মামলা করে।’

বিএনপি আদালতকে হুমকি দিচ্ছে -হাছান মাহমুদ : আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার শাস্তি হবে কিনা সেটা আদালত জানেন। কিন্তু বিএনপির নেতারা এ নিয়ে মাঠ গরম করছেন। টেলিভিশনের পর্দা গরম করছেন। টকশোর পর্দা ফাটিয়ে দিচ্ছেন। আদালতকে হুমকি দিচ্ছেন। তারা বলছেন, শাস্তি হলে আগুন জ্বলবে। তাদের এসব বক্তব্যের জন্য আদালত ব্যবস্থা নেবেন বলে আশা করি।’

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়ার ১৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ‘বর্তমান প্রেক্ষাপট- চলমান রাজনীতি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন, সাবেক সংসদ সদস্য ও চিত্রনায়িকা সারাহ বেগম কবরী, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি চিত্রনায়ক ফারুক, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান জুয়েল, স্বাধীনতা পরিষদের ফজলুল হক, সোহেলী পারভীন মনি, শেখ নওশের আলী প্রমুখ।