বিএনপির জন্য যে টিকা আবিষ্কার করা প্রয়োজন

nasimবিএনপির জন্য পালিয়ে যাওয়া রোগ থেকে বাঁচার টিকা আবিষ্কার করা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

বৃহস্পতিবার ঢাকা শিশু হাসপাতাল আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন নাসিম।

তিনি বলেন, আজ রংপুর সিটি কর্পোরেশনে নির্বাচন শুরু হতেই বিএনপি বলা শুরু করেছে কারচুপি হয়েছে। বিএনপি এসব কথা বলে পালিয়ে যেতে চায়। পালানো রোগ থেকে বিএনপিকে বাঁচানো দরকার।

তিনি ডাক্তারদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিএনপির জন্য এই টিকা আবিষ্কার করেন। আমরা বিনামূল্যে বিতরণের ব্যবস্থা করে দেব।

জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০১৭ (২য় রাউন্ড) উপলক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে খালেদা জিয়ার পাঠানো উকিল নোটিশ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসিম বলেন, কখনো শুনেছেন একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে উকিল নোটিশ পাঠায়। আগামী নির্বাচনে আপনাদের (বিএনপিকে) লাল নোটিশ দেয়া হবে।

এ সময় রোহিঙ্গাদের বিষয়েও কথা বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যা আমাদের দেশের সবচেয়ে কষ্টকর সমস্যা। তারা আকস্মিকভাবে আমাদের দেশে এসেছে। তাদের দেশের সরকার তাদের ওপর হত্যা-নির্যাতন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের আশ্রয় ও খাবার দিলেন। আমরা তাদের চিকিৎসা সহায়তা দিচ্ছি।

রোহিঙ্গাদের পরিবার পরিকল্পনা সেবা দেয়া হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, হেলথ সেক্টরে তাদের যে সেবা দেয়া হচ্ছে- তা তুলনা করা যাবে না। ওরা (রোহিঙ্গা) রোগ নিয়ে এসেছে। এইডস আমাদের দেশে নাই, ওদের দেশে আছে। ওদের মেয়েরা এসেছে একেকজনের ১০/১১টা করে সন্তান। আমরা তাদের ডেলিভারি সেবা দিচ্ছি। ওদের ওখানে ফ্যামিলি প্ল্যানিং নেই। আমরা তাদের এর আওতায় আনার চেষ্টা করছি।

রোহিঙ্গাদের কারণে পোলিও ছড়ানোর আশঙ্কা করে নাসিম বলেন, পোলিও আমরা নির্মূল করেছি। ভয় পাই কখন না আবার পোলিও ছড়িয়ে পড়ে। তাদের মধ্যে ডিপথেরিয়া রোগী আছে। ওরা (রোহিঙ্গা) যে রোগগুলো নিয়ে এসেছে এগুলো যেন ছড়িয়ে না পড়ে।

ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন ২০১৭ সম্পর্কে তিনি বলেন, শনিবার ৬-৫৯ মাস বয়সী ২ কোটি ২১ লাখ শিশুকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। শিশুরা স্থায়ী ও অস্থায়ী ক্যাম্পের মাধ্যমে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাবে। একটি শিশুও বাদ যাবে না। এজন্য ফেরিঘাট, লঞ্চঘাট, বাসস্টেশন, রেলস্টেশন, বঙ্গবন্ধু সেতু, দাউদকান্তি সেতু, মেঘনাসেতুসহ অন্যান্য অস্থায়ী কেন্দ্রের মাধ্যমে এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মা-বাবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনারা আপনাদের সন্তানকে টিকা কেন্দ্রে নিয়ে আসুন। তাদের রোগপ্রতিরোধে সহায়তা করুন।

১২-৫৯ মাস বয়সী প্রায় ১ কোটি ৯৫ লাখ শিশুকে একটি করে লাল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এছাড়া ৬-১১ মাস বয়সী প্রায় ২৬ লাখ শিশুকে একটি করে নীল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার স্থায়ী ইপিআই কেন্দ্রের মাধ্যমে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।