নিপুণ-শাকিব ইস্যুতে ভুয়া স্ট্যাটাসে ফেরদৌসের ক্ষোভ

চিত্রনায়কি বুবলীর প্রশংসা করতে গিয়ে শাকিব খানের মন্তব্যের জের ধরে এই নায়কের উপর ক্ষোভ ঝেড়েছেন আরেক চিত্রনায়িকা নিপুণ। নিজের ফেসবুক ফ্যান পেজে শাকিব খানের শিক্ষাগত যোগ্যতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে কড়া এক দীর্ঘ স্ট্যাটাস দিয়েছেন তিনি।

এরপর সোমবার (৩ জুলাই) রাতে চিত্রনায়ক ফেরদৌসের নামে একটি ভুয়া ফেসবুক পেজ থেকে শাকিবের সমালোচনা করায় নিপুণের স্ট্যাটসের কড়া সমালোচনা করা হয়। যাচাই বাছাই না করে শাকিব ভক্তরা এই বক্তব্যকে ফেরদৌসের মন্তব্য হিসেবে উল্লেখ করে শেয়ার করছেন সর্বত্র। ফেরদৌসের বক্তব্যের উপর ভিত্তি করে ফেসবুকে সমালোচনা করা হচ্ছে নিপুণকে।

কিন্তু এই স্ট্যাটাস নিয়ে বিব্রতকর অবস্থায় রয়েছেন ফেরদৌস। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘সকাল থেকে লোকদের জবাব দিতে দিতে আমি ক্লান্ত। এটা আমার জন্য খুবই বিব্রতকর যে আমার নামে ভুয়া একটি পেজ থেকে নিপুণকে হেয় করে বাজেভাবে একটি স্ট্যাটাস দেয়া হয়েছে এবং সেটি ভাইরাল হয়ে গেছে। কিছু গণমাধ্যমও আমার মতামত না জেনেই এই স্ট্যাটাস নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছেন। এটা দু:খজনক।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি সবাইকে স্পষ্ট করে বলতে চাই, আমি ফেসবুক ইউজার নই। ফেসবুকে আমার কোনো আইডি বা ফ্যানপেজ কিচ্ছু নেই। অনেক আগেও একবার আমি গণমাধ্যমে প্রচার করেছিলাম এই বিষয়টি। কিন্তু সবাই হয়তো ভুলে গেছেন। তবে আমি হতাশ হয়েছি, যারা আমাকে চেনেন তারা এমন ভাষার লেখাকে কেমন করে আমার বলে বিশ্বাস করতে পারলেন।’

ফেরদৌস আরও বলেন, ‘হয়তো বেখেয়ালেই এই পেজকে আমার মনে করে আমার বক্তব্য হিসেবে নিপুণকে নিয়ে নানা কথা বলে বেড়াচ্ছেন সবাই। নিপুণ আমার খুব প্রিয় একজন সহকর্মী। আমি তাকে নিয়ে এমনভাবে কথা বলার কোনো মানে দেখি না। আমি শুনেছি শাকিব খান একটি লাইভ অনুষ্ঠানে দেশের নায়িকাদের শিক্ষাগত যোগ্যতা, স্মার্টনিটি নিয়ে কথা বলেছেন। এই কথায় হতাশ হয়েই হয়তো নিপুণ শাকিবের সমালোচনা করেছেন। তাকে নিয়ে আমার কথা বলার কিছু নেই। নিপুণ যদি অযৌক্তিক কিছু বলে থাকেন বা মিথ্যে কিছু বলে থাকেন তার প্রতিবাদ শাকিব করতে পারেন।’

তিনি বলেন, ‘এক জনের নামে আইডি খুলে অন্যজনে সেটা থেকে স্ট্যাটাস, ছবি পোষ্ট দেয়া খুব খারাপ। আর একটা কথা বলে রাখি, আমার কাছে এত সময় নেই যে আমি আরেক জনের সমালোচনা করবো। আমার হাতে অনেক কাজ। এসব অকাজ করার মত লোক আমি ফেরদৌস নই।’

এই নায়ক বলেন, ‘আমার নামে অসংখ্য ভুয়া ফেসবুক আইডি-পেজ আছে। এর আগে সাইবার ক্রাইমের মাধ্যমে অনেকগুলো ভুয়া আইডি নষ্ট করেছি। প্রয়োজনে আবারও করবো। কক্সবাজারে আছি। সেখান থেকে ফিরবো ৭ জুলাই। তারপর বনানী থানায় গিয়ে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।’

কক্সবাজারে ফেরদৌস বর্তমানে ‘পবিত্র ভালোবাসা’ ছবির শুটিং করছেন। কিছুদিন আগে তিনি যৌথ প্রযোজনার নির্মিত ‘ইয়েতির অভিযান’ ছবির শুটিং করে দেশে এসেছেন।