আজ সন্ধ্যায় ট্রেনের চাকার তলায় পিষে যায় একের পর এক মানুষ

trenট্রেনের লাইনের ওপর এবং পাশে দাঁড়িয়ে বিজয়া দশমীতে রাবণ পোড়ানো দেখছিলেন কয়েকশ মানুষ। আর সেই ভিড়ের ওপর দিয়েই দ্রুত গতিতে চলে গেল ট্রেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় ভয়াবহ এই দুর্ঘটনা ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাবের অমৃতসরের চৌরি বাজার এলাকায়।

প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে, নিহতের সংখ্যা অন্তত ৫০ জন। এ ঘটনায় বহু মানুষ আহত হয়েছেন। নিহতের সংখ্যা আরো বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ এবং উদ্ধারকারীরা।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী, রেল লাইনের পাশে রাবণের কুশপুতুল পোড়ানো হচ্ছিল। রেললাইনের পাশে সেই রাবণ পোড়ানো দেখতে দাঁড়িয়ে ছিলেন বহু মানুষ। রাবণ পোড়ানোর সময় বাজির আগুন ছিটকে আসতে থাকে।

দর্শকদের একাংশ সরে লাইনের উপর উঠে আসেন। আর সেই সময় ওই লাইন ধরে চলে আসে দ্রুত গতির একটি ট্রেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, ওই সময় দুই লাইনেই এক সঙ্গে ট্রেন চলে আসে। তাই কোনো দিকেই সরতে পারেননি দর্শকরা। ট্রেনের চাকার তলায় পিষে যায় একের পর এক মানুষের দেহ।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, বাজির আওয়াজে ঢাকা পড়ে গিয়েছিল ট্রেনের আওয়াজ। তাই কেউ শুনতে পাননি। তাদের অভিযোগ, রাবণ দাহ যারা করছিলেন সেই আয়োজকরা অন্তত মানুষকে সতর্ক করতে পারতেন।

উত্তর রেলের জনসংযোগ কর্মকর্তা বলেন, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা নাগাদ দুর্ঘটনাটি ঘটে অমৃতসর এবং মানেওয়ালার মাঝখানে ২৭ নম্বর গেটের সামনে। একটি ডিএমএউ ট্রেন চলে যায় ভিড়ের উপর দিয়ে।