ঘূর্ণিঝড় তিতলির আঘাতে নিহত ৮

tatliঘূর্ণিঝড় `তিতলি`র আঘাতে ভারতে এখন পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য অন্ধ্র প্রদেশ ও উড়িষ্যার মাঝামাঝি এলাকায় ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানলে ৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। সূত্র হিন্দুস্তান টাইমস’ এর।

পশ্চিমবঙ্গের দিকে ঝড়ের ততটা প্রভাব না পড়লেও উড়িষ্যা ও অন্ধ্রপ্রদেশে তিতলির প্রভাব পড়েছে মারাত্মক। তবে ঝড় না হলেও প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে পশ্চিমবঙ্গেও। এখনও পর্যন্ত আট জন মারা গিয়েছেন এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে। এর মধ্যে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীকাকুলামে প্রাণ হারিয়েছে ২ জন।

অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূলবর্তী জেলাগুলিতেও জারি করা হয়েছে রেড অ্যালার্ট। তিতলির প্রভাবে গঞ্জাম, কেন্দাপাড়া, বেরহামপুরেও একাধিক বাড়ি ভেঙে গিয়েছে। উপড়ে গিয়েছে বিদ্যুতের খুঁটি। ঘূর্ণিঝড়ের জেরে কলকাতা থেকে ভুবনেশ্বর ও কলকাতা থেকে বিশাখাপত্তনমের ফ্লাইটও বাতিল করা হয়েছে।

এছাড়া প্রায় তিন লাখ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম। উড়িষ্যার চার জেলা পুরী, খুরদা, কেন্দ্রপাড়া, জগত্সিংপুর ও গঞ্জামে স্কুল কলেজ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ওডিশা থেকে দুর্বল হয়ে তিতলি বাংলাদেশের দিকে আসছে বলে জানা যায়। তবে বাংলাদেশ অতিক্রম করার সময় এটি আরও দুর্বল হয়ে পরবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তর। এজন্য দেশের ৪ সমুদ্র বন্দরসমূহকে চার নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ রাশেদুজ্জামান বলেন, ঘূর্ণিঝড় তিতলি নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। তিতলি এর প্রভাবে আজ ও আগামীকাল সারা দেশে বৃষ্টি হতে পারে।