এবার মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে বিএনপি যা যা জানালেন

bnp

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ডেভিড আল মিলারের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শুক্রবার গুলশানে রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে এই বৈঠক হয়। সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত চলে এই বৈঠক। বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়ালও উপস্থিত ছিলেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বৈঠকে অংশ নেয়া বিএনপির এক নেতা যুগান্তরকে বলেন, বৈঠকে সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অনিয়মের চিত্র মার্কিন রাষ্ট্রদূতের কাছে তুলে ধরে বিএনপি।

ভোটের আগের রাতে কি হয়েছিল, ভোটের দিনের পরিবেশ, নির্বাচন কমিশনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভূমিকা কী ছিল তার কিছু দালিলিক প্রমাণও যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে দেয়া হয়।

এ সময় গণমাধ্যমের ওপর কী ধরনের চাপ ছিল তা-ও রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করা হয়।

ওই নেতা আরও জানান, রাষ্ট্রদূত বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে বলেন, তারা সব কিছুই অবগত। এ কারণে যুক্তরাষ্ট্র এখনো পর্যন্ত নতুন সরকারকে ওয়েলকাম জানায়নি।

এ নিয়ে রাষ্ট্রদূত শিগগিরই ওয়াশিংটনে যাবেন। সেখানে মার্কিন সরকারের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে।

বৈঠকের পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বা বিএনপির কোনো নেতাই সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেননি।

রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে দেড় ঘণ্টা বৈঠকের পর বিএনপি মহাসচিব গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে যান। সেখানে গণমাধ্যমের কর্মীরা অপেক্ষায় থাকলেও মির্জা ফখরুল কোনো কথা বলেননি।

৩০ ডিসেম্বর ভোটের পর কোনো রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বিএনপি মহাসচিবের এটিই প্রথম বৈঠক।

বৃহস্পতিবার ধানের শীষের প্রার্থীদের পক্ষ থেকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের নিয়ে মির্জা ফখরুল নির্বাচন কমিশনের কাছে অনিয়মের তথ্য-প্রমাণাদিসহ স্মারকলিপি প্রদান করেন।