এবার নতুন যে নামে আসছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা

nur

নতুন আঙ্গিকে, নতুন নাম নিয়ে শীঘ্রই আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্লাটফর্ম ‘বাংলদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।’

সংগঠনটির একাধিক শীর্ষ নেতা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তরুণ সমাজের এই প্ল্যাটফর্মকে নতুন আঙ্গিকে ঢেলে সাজাতে দেশের ৬৪ জেলায় নতুন কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে।

বাংলদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ও ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, ‘দেশের মানুষের কল্যাণে সমাজ-রাষ্ট্রের অন্যায়-অনিয়ম, বৈষম্যের সমাধানে কার্যকর প্রতিবাদ এবং দেশের বিভিন্ন প্রান্তের সাধারণ মানুষের যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত অধিকার আদায়ে এ সংগঠন কাজ করছে।

সারা দেশের ছাত্রসমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে কাজ করার স্বার্থে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, জেলা, উপজেলা, থানা পর্যায়ে কমিটি গঠনের কাজ চলছে। ফলে নতুন কিছু নিয়ে আসছে আমাদের সংগঠন।’

‘দেশের গতানুগতিক লেজুড়বৃত্তি ছাত্ররাজনীতি কিংবা রাজনৈতিক দলের হাতিয়ার হিসেবে কাজ করা ছাত্রসংগঠনের পরিবর্তে আমরা একটি নতুন সংগঠনের প্লাটফর্ম ঘোষণা করতে যাচ্ছি।

nuruযা প্রকৃত অর্থে শিক্ষার্থী, সমাজ-রাষ্ট্রের কল্যাণে দেশপ্রেম, ত্যাগ ও সেবার মানসিকতা নিয়ে কাজ করবে।’

সংগঠনটির যুগ্ম-আহ্বায়ক ফারুক হোসেন বলেন, ‘নতুন আঙ্গিকে আসছে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

প্রিয় সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে আমরা দেশের ৬৪টি জেলায় কমিটি হালনাগাদ করতে কাজ শুরু করছি। ইতোমধ্যে সবগুলো জেলায় আমায় আমাদের কমিটির ফরমেট রেডি করা হয়েছে।

আশাকরি খুব দ্রুত আমরা জাতীয় সম্মেলন করে আমাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দিবো।’

‘ঢাকা সহ সারা দেশে সকল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে আমাদের কমিটি দেওয়ার কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

বিভিন্ন রাজনৈতিক এবং সামাজিক সংগঠনের নামের আলোকে আমরা আমাদের সংগঠনের নাম সংক্ষিপ্ত করার পরিকল্পনা নিয়েছি।

আমরা সংবাদ সম্মেলন করে অতি দ্রুত আমাদের সংগঠনের নাম প্রকাশ করবো।’

এদিকে জানা গেছে সম্ভাব্য ‘ছাত্র পরিষদ’ নামে আসছে কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম বাংলদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

তবে সংগঠনটির নেতারা বলছেন, সংগঠনের নাম কী হচ্ছে সেটি খুব শীঘ্রই সংবাদ সম্মেলন করে জানানো হবে।

সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন বলেন, ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদকে আমরা সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে চাই।

এজন্য দেশব্যাপী নতুন কমিটি গঠনের কাজ চলছে। আমরা হয়তো সংগঠনের নামটি কিছুটা সংক্ষিপ্ত করবো। তবে নামটি এখনো চূড়ান্ত করা হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা সবসময় দেশের প্রতিটি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের নির্যাতন-নিপীড়ন, ভর্তি সহায়তা, মেধাবী ও অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের পাশে থাকতে চাই।

পাশাপাশি আমরা ব্লাড ব্যাংক, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় স্বেচ্ছাসেবীটিম গঠনের প্রক্রিয়া চলছে।’