অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগে অন্তকোন্দল চরমে

jঅস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের অন্তকোন্দন এখন চরমে।সর্ব ইউরোপিয়ান আ’লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলামের নিজ দেশ অস্ট্রিয়াতেই বর্তমানে আওয়ামী লীগের অন্তকোন্দলে দলীয় কার্যকর্ম মুখ থুবড়ে পড়েছে।

গতকাল রবিবার অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় দলের উচ্চ পর্যায়ের ৩/৪ জন ছাড়া আর কোন নেতাকর্মীদের লক্ষ করা যায়নি।

অনেকেই এ সংকটকে দলের অর্ন্তকোন্দল এবং অযোগ্য লোকদের দায়িত্ব দেওয়াকে দোষারোপ করেছেন।

রবিবার বিকেলে একই সময় দুটি ভিন্ন স্থানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের দুটি গ্রুপ ।অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে সাধারন সম্পাদক সাইফুল কবির, সহ সভাপতি আখতার হোসেন এবং রুহি দাস সাহা ছাড়া উল্লেখযোগ্য কোন নেতাকর্মীদের দেখা যায়নি। নাম না প্রকাশ শর্তে এক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামী লীগ সভাপতি এম নজরুল ইসলাম এবং অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমানের সেচ্ছাচারিতার কারনে অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সৃষ্টি হয়েছে।

অন্যদিকে অস্ট্রিয়ায় গতকালের অন্য অনুষ্ঠানে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রবিন মোহাম্মদ আলী, সাধারণ সম্পাদক রানা বখতিয়ার এবং প্রয়াত সভাপতি শাহ মোহাম্মদ ফরহাদের সহধর্মিণী জান্নাতুল ফরহাদ ছাড়া আর কোন নেতাকর্মীদের দেখা যায়নি।

কারন হিসেবে অনেকেই ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদক কে দায়ী করে বলেন যাদের কোন সাংগঠনিক দক্ষতা নেই তাদের সাথে রাজনীতি করা যায়না। তবে অনেকেই নজরুল ও নাসিমের হুমকির কারনেই এবং মান সন্মানের ভয়ে অনুষ্ঠানে আসতে অপারগতা জানায়। অস্টিয়া আওয়ামী লীগে অন্তকোন্দল এবং সেচ্ছাচারিতার কারনে অনেক ত্যাগী নেতা দলের কার্যক্রম থেকে নিজেকে সরিয়ে রেখেছেন।

এমন অনেক নেতা রয়েছেন যারা অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন কিন্তু তারা এখন অনেকটাই নিস্ক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন।অনেকেই ধারনা করছেন সর্ব ইউরোপিয়ান আ’লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলামের আস্থাভাজন খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম এবং সাইফুল কবির চতুর্থ বারের মত আগামী সন্মেলনে নির্বাচিত হবেন এই কারনে আগে থেকেই দল থেকে দূরে সরে গিয়েছেন নেতাকর্মীরা। অনেকেই মনে করেন নাসিম কবির গং যদি দায়িত্বে না আসে এবং এম নজরুল ইসলাম যদি কমিটি গঠনে হস্তক্ষেপ না করেন তাহলে হয়তবা দলকে চাঙ্গা করা সম্ভব।