অবশেষে ঠাঁই পেলেন শাজাহান খান

shajahan-khan-2 দুই মেয়াদে নৌপরিবহনমন্ত্রী ছিলেন শাজাহান খান। দল টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসার পর নানা কারণে বিতর্কিত ও সমালোচিত শাজাহান খান বাদ পড়েন মন্ত্রিসভা থেকে।

মন্ত্রিসভায় ঠাঁই না পাওয়া সেই শাজাহান খান অবশেষে সংসদীয় কমিটির সভাপতি হলেন।

একাদশ জাতীয় সংসদে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি করা হয়েছে তাকে।

মঙ্গলবার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠকে চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কমিটি গঠন করেন।

এছাড়া আরও তিনটি কমিটি গঠন করা হয়। এ নিয়ে ১০টি সংসদীয় কমিটি গঠন করা হলো।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্যরা হলেন- মন্ত্রী আ খ ম মোজাম্মেল হক, আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ, মঈন উদ্দীন খান বাদল, রাজি উদ্দিন রাজু, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম, এবি তাজুল ইসলাম, কাজী ফিরোজ রশিদ, এ কে এম রহমতউল্লাহ ও ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল।

এ ছাড়া শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি করা হয়েছে আফসারুল আমীনকে।

এ কমিটির সদস্যরা হলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, আবদুস কুদ্দুস, এ কে এম মাজাহারুল কামাল, ফজলে হোসেন বাদশা, আবদুস সোবহান মিয়া, এম এ মতিন, গোলাম কিবরিয়া টিপু ও মাহী বদরুদোজা চৌধুরী (মাহী বি. চৌধুরী)।

পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি করা হয়েছে সাবের হোসেন চৌধুরীকে।

এই কমিটির সদস্যরা হলেন মন্ত্রী হাছান মাহমুদ, আনোয়ার হোসেন, মোজাম্মেল হোসেন, দীপঙ্কর তালুকদার, নাজিম উদ্দীন আহমেদ, জাফর আলম, রেজাউল করিম বাবলু।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি করা হয়েছে মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তমকে।

এ কমিটির সদস্যরা হলেন- প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, শাজাহান খান, মাজহারুল হক প্রধান, রঞ্জিত কুমার রায়, মাহফুজুর রহমান, এম আবদুল লতিফ, ডা. সামিল উদ্দীন আহমেদ শিমুল, আসলাম হোসেন ও এ কে এম শাহজাদা।