অবশেষে জানা গেল যে কারণে কোন সংসারই টিকে না শ্রাবন্তীর!

srabontiএকবছর আগে বাগদান ও ঘরোয়া বিয়ের আয়োজনের পর গত জুলাইয়ে বিয়ের রেজিস্ট্রি হয় কলকাতার জনপ্রিয় নায়িকা শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি মুম্বাইয়ের সুপার মডেল কৃষাণের। এই বছর তাদের আনুষ্ঠানিক আয়োজন করার কথা ছিল। কিন্তু তাদের এই সংসারটি টিকে নেই এখন আর।

বিয়ে ও বিচ্ছেদের জন্য প্রায় এক বছর চলচ্চিত্র থেকে দূরে ছিলেন শ্রাবন্তী। সম্প্রতি শ্রাবন্তী কথা বলেছেন ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে। সেখানে তিনি জানিয়েছেন তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের কথা। জানলে অবাক হবেন যে কারণে সংসার করতে পারলেন না শ্রাবন্তী!

বিচ্ছেদ পরবর্তী জীবন এবং হতাশা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে শ্রাবন্তী বলেন, ‘আমি এখন ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছি না। কাজ আর ছেলের পড়াশোনা, এই নিয়ে ব্যস্ত। ঝিনুকের ক্লাস এইট হলো। ওর স্কুলে যেতে অসুবিধা হবে বলে বেহালা থেকে বাইপাসের ধারে বহুতল দালানে চলে এসেছি।

আর হতাশ হয়ে নিজের ক্ষতি করতে পারব না।কারণ আমার ছেলে, বাবা-মা সবসময় আমায় আগলে রাখে। মাঝেমাঝে ভাবি এত ভালোবেসেও আমি ভালোবাসা পেলাম না। তারপর ভাবি বাইরের লোকে যাই বলুক, আমি তো জানি কারো সঙ্গে কেন সংসার করতে পারিনি। বাইরের লোক কী বলল, তা নিয়ে আর ভাবি না।’

যে কারণে কোন সংসারই টিকে না শ্রাবন্তীর!

বিচ্ছেদের পরবর্তী কষ্ট ও হতাশা নিয়ে শ্রাবন্তী আরো বলেন, ‘আমি খুব আবেগ প্রবণ। সংসার করতে ভালোবাসি। কিন্তু এখন মনে হয়, শুধু স্বামী থাকলেই সংসার হবে- এমন নয়। বাবা-মা, ছেলেকে নিয়েও সংসার হয়। প্রতিটা মেয়েই চায় সংসার করতে। কিন্তু আমার কপালে যা লেখা ছিল তাই হয়েছে।

ভবিষ্যৎ কী রকম হবে জানি না। তবে আমি আগের থেকে পরিণত হয়েছি। এখন কাজেও অনেক বেশি মন দিতে পারছি। মাঝে এক বছর কাজে অতটা মন দেইনি।’কার সিদ্ধান্তে দ্বিতীয়বারের বিচ্ছেদের পথ মাড়ালেন শ্রাবন্তী, এমন প্রশ্নের জবাবে শ্রাবন্তী বলেন, ‘দুজনে মিলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

কৃষাণের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগও নেই শ্রাবন্তীর। প্রাক্তন স্বামীকে শুভকামনা জানিয়ে শ্রাবন্তী বলেন, ‘আমি চাই, আমার সঙ্গে না হোক, কিন্তু সে যেন ভালো থাকে।’শ্রাবন্তী-কৃষাণের পরিচয় হয় দেড় বছর আগে একটি বিজ্ঞাপনের কাজের সময়। এরপরেই ভালোলাগা থেকে প্রণয় এবং পরিণয়ের সিদ্ধান্ত।

শ্রাবন্তীর জীবনে কৃষাণ প্রথম নন। এর আগে শ্রাবন্তীর বিয়ে হয়েছিল চলচ্চিত্র নির্মাতা রাজীব চক্রবর্তীর সঙ্গে। শ্রাবন্তী-রাজীবের ঘরে জন্ম নেয় ঝিনুক নামের এক পুত্র সন্তান। কিন্তু তাদের সে সংসার টেকেনি।

শ্রাবন্তীর গুরুত্বপূর্ণ ১০টি তথ্য

ভারতের টালিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। বলা যায় ঋতুপর্ণার পরে কোয়েল মল্লিককে বাদ দিলে যিনি সবচেয়ে বেশি দর্শকদের মন জয় করেছেন, তিনি হলেন শ্রাবন্তী।

তার ২০ বছরের অভিনেত্রী জীবনের কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেখে নিন এক নজরে—

১. প্রথম ছবি ‘মায়ার বাঁধন’ ১৯৯৭ সালে, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তের সঙ্গে। বাংলা ছবিতে তাঁর এই ব্রেক পরিচালক স্বপন সাহার হাত ধরে। তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১০।

২. ২০০৩ সালে ‘চ্যাম্পিয়ন’ ছবিটি তাঁর কেরিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট। শিশুশিল্পী থেকে নায়িকার ভূমিকায় উত্তীর্ণ হলেন মাত্র ১৬ বছর বয়সে। নায়কের ভূমিকায় ছিলেন ‘জিৎ’। পরিচালক, রবি কিনাগী।

৩. এই ছবির পরেই প্রায় পাঁচ বছর ব্রেকে ছিলেন নায়িকা, ব্যক্তিগত কারণে। এই সময়ের মধ্যেই পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে তাঁর বিয়ে। অবশ্য তখনও রাজীব অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর হিসেবেই কাজ করছিলেন টলিউডে।

৪. কামব্যাক ছবি ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’, নায়ক ছিলেন হিরণ। পরিচালক আবারও সেই রবি কিনাগী।

৫. রাজীবের পরিচালনায় শ্রাবন্তীর প্রথম ছবি ২০০৯ সালে, দেবের বিপরীতে। ছবির নাম ‘দুজনে’। বলা বাহুল্য, ছবিটি দর্শকদের মন জয় করেছিল।

৬. এরপর একের পর এক সুপারহিট ছবি রয়েছে শ্রাবন্তীর কেরিয়ারে। ‘ওয়ান্টেড’, ‘অমানুষ’, ‘জোশ’, ‘সেদিন দেখা হয়েছিল’, ‘ফান্দে পড়িয়া বগা কান্দে রে’, ‘দিওয়ানা’, ‘বিন্দাস’— মোটামুটি ভাবে ২০০৯ থেকে ২০১৪ শ্রাবন্তী এক কথায় অপ্রতিরোধ্য।

৭. তবে ২০১৩ সালটি তাঁর কেরিয়ারগ্রাফে খুব গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় রয়েছে। শুধুমাত্র ছকবাঁধা মেইনস্ট্রিম বাংলা ছবি থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি। অপর্ণা সেনের ‘গয়নার বাক্স’ মুক্তি পায় সে বছর। নায়িকা নয়, ওই ছবিতে শ্রাবন্তীকে দর্শক পেয়েছেন ‘ক্যারেক্টার অ্যাক্ট্রেস’ হিসেবে।

৮. তবে এই পর্যায়েই ব্যক্তিগত টানাপোড়েনের মধ্যে পড়েন নায়িকা। রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে বিবাহিত জীবনে ইতি টানেন। ছেলে অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায় (ঝিনুক)কে নিয়ে আলাদা থাকতে শুরু করেন কিন্তু তাঁর কেরিয়ারে এতটুকু আঁচ পড়েনি। বরং ২০১৪-২০১৫ সালেই মুক্তি পেয়েছে হিট ছবি রাজ চক্রবর্তীর ‘কাটমুণ্ডু’ ও বীরসা দাশগুপ্তের ‘শুধু তোমারি জন্য’।

৯. ২০১৬ সালে মুক্তি পায় ‘শিকারি’। বাংলাদেশের শাকিব খানের বিপরীতে তাঁর প্রথম ছবি। আর এই বছরই সুপার মডেল কৃষণ ব্রজের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি।

১০. ২০১৭ সালে এখনও পর্যন্ত শ্রাবন্তী অভিনীত কোন ছবি মুক্তি পায়নি বটে কিন্তু কেরিয়ারে এই বছরটিও একটি টার্নিং পয়েন্ট বলা যায়। পরিচালক রাজর্ষি দে-র ডেবিউ প্রজেক্ট ‘বীরুপুরুষ’-এর শ্যুটিং প্রায় শেষের দিকে। এই ছবিতে শ্রাবন্তীকে দেখা যাবে এক অ্যাকশন-নায়িকার ভূমিকায়। ছবির লুকসেটিংও একেবারেই অন্য রকম, যে লুকে বাংলা ছবির দর্শক তাঁকে আগে কখনও দেখেনি।